দশ টাকার নোট বললে সবাই চিনবে । টাঙ্গাইলের আতিয়া গ্রামের মুসলিম ঐতিহ্যের প্রতীক এ মসজিদ । নব্বই দশকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের দশ টাকার নোটে উঠে এসেছিল বিখ্যাত এ নোটের ছবি । মধ্যযুগের এ পুরাকীর্তিটি পোড়ামাটি দিয়ে তৈরি । কিন্তু কি কারনে মসজিদটি বিখ্যাত বা নির্মাণ সাল কবে সে বিষয়ে বিস্তারিত দিকনির্দেশনা নেই । শুধু মসজিদের নেমপ্লেটে
ইংরেজিতে লেখা সাঈদ খান পন্নীর নাম । মসজিদের কেবলামুখী দেয়ালে রয়েছে তিনটি অলঙ্কৃত মেহরাব । এ ছাড়া পূর্ব ও উত্তর দেয়ালে রয়েছে চমৎকার পোড়ামাটির নকশা ।
মসজিদের পূর্ব আঙ্গিনায় একটি পাকা কবর রয়েছে । কবরের পাশে একটি পাকা সুড়ঙ্গ পথ । সুড়ঙ্গটি বর্তমানে বন্ধ অবস্থায় আছে । এই মসজিদটির নিকটেই রয়েছে স্বচ্ছ পানির বড় পুকুর ।

ধারনা করা হয় , ১৬০৮-১৬১১ সালের মাঝামাঝি সময়ে মসজিদটি নির্মাণ করা হয় । দুর-দুরান্ত থেকে বহু পর্যটক এখানে বেড়াতে আসেন । ইতিহাসে পাওয়া যায়, আলি শাহান শাহর বাবা আদম কাশ্মীরি (রহঃ)-কে সুলতান আলাউদ্দিন হুসায়েন শাহ টাঙ্গাইল জেলার জায়গিরদার নিয়োগ দিয়েছিলেন । সে সময় ইসলাম প্রচার এবং আনুসাঙ্গিকব্যয় নির্বাহের জন্য আফগান শাসক সোলাইমান কররানি তাকে এলাকাটি দান করেছিলেন । সে থেকে অঞ্চলটির নাম আতিয়া । পরবর্তীকালে বাবা আদম কাশ্মীরির পরামর্শক্রমে সাঈদ খান পন্নী এক ১৬০৮ সালে আতিয়া মসজিদ নির্মাণ করেন । মসজিদের ভেতরের কবরটি বাবা আদম কাশ্মীরির ।

একদিনের টাঙ্গাইল ভ্রমনে এটি হতে পারে একটি সুন্দর দর্শনীয় স্থান।

[ Everybody will know if we mention ten take notes. This mosque is the symbol of the Muslim heritage of Atiya village of Tangail. In the nineties, this famous mosque first appeared on the ten taka notes of the government of the People’s Republic of Bangladesh. The archaeological heritage of medieval times is made of terracotta. But there is no detailed guidance on why the mosque is famous or when it is built. Only in the mosque’s nameplate Saeed Khan Panni’s name written in English. On the wall towards the wall of the mosque, there are three decorated mehrab. Besides, there are excellent terracotta designs on the eastern and northern walls.

There is a grave grave in the eastern courtyard of the mosque. A paved tunnel is there beside the grave, but its currently closed. A pond of transparent water is near this mosque.

It is believed that the mosque was built in the middle of 1608-1611. Many tourists came here to visit here. It is found in history that Sultan Alauddin Hussain Shah appointed Adam Kashmiri (RH), father of Ali Shahan, as the jaigir of Tangail district. At that time, the Afghan ruler Solaiman Karrani donated the area to him for the promotion of Islam and for his involvement. From that time the area is known as Atiya. Subsequently, on the advice of Baba Adam Kashmiri, Saeed Khan Panni has built Atiya Mosque in 1608. The inner grave of the mosque is of Adam Adam Kashmiri.

It is a beautiful spot in Tangail, for a day tour. ]

** Content source: FB, Hasnat Kiron.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *